'পাঠাও' রাইডারের এক বেয়াদব চালক
প্রকাশ : ২২ জানুয়ারি ২০১৮, ১৬:০৩
'পাঠাও' রাইডারের এক বেয়াদব চালক
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

আমি পাঠাও-উবারের একজন ভক্ত। সার্ভিসগুলো চালু হবার পর প্রায় প্রতিদিনই ব্যবহার করে আসছি। তবে আজকাল কিছু পাঠাও-উবার চালক পাচ্ছি যারা খুবই বেয়াদব।


ক'দিন আগে একরাতে আমি বাসায় ফেরার জন্য পাঠাও শেয়ার করি, চালকের নাম মোঃ মিজানুর রহমান (01908124447)। তিনি জোনাকী সিনেমা হলের সামনে আসতেই তিন-তিনটা কল করলেন। একবার বলেন, রাস্তার ওই পাশে, পরে বলেন পলওয়েল মার্কেটের সামনে, আবার জিজ্ঞেস করলেন খিলগাঁও ভিতরে কি না।


আসার পর মটর সাইকেলের বাম পাশের পাদানীতে দেখলাম চেইন কভার দিয়ে বাঁধা, যাতে পা রাখা যায়! যাই হোক, নিজকে সংযত করে তাকে বলেই ধরে উঠলাম (জিন্স প্যান্ট পরার কারণে উনাকে ধরে এক সাইডে ভর দিয়ে উঠতেই) দেখি তিনি কিছুটা মাইন্ড করলেন।


যাই হোক, যাত্রা শুরু হলো। আমি মাঝে মাঝে পথ দেখিয়ে দিচ্ছিলাম। কিন্তু দেখি কী, আমার দেখানো পথে যেতেও তিনি কেমন কেমন করছিলেন। চালনাতেও দক্ষতার পরিচয় দিচ্ছিলেন না। বিষয়টাতে আমি বিরক্ত হয়েছি, তবুও কিছু না বলে বাসার কাছে পৌঁছে গেলাম।


আমি নেমে যেতেই তিনি রাইড স্টপ করে আমাকে টাকার অঙ্ক জানিয়েই বললেন আমি যেন তাকে 'থাম্প আপ' দেই! আমি তবুও চুপ, ১০০ টাকার নোট বের করে দিচ্ছি! চালক এ সময় বললেন, আমি আপনাকে 'থাম্প আপ' দিয়েছি!


এর পর আমার মেজাজ কিছু বিগড়ে যায়। বললাম, আমি কি আপনাকে 'থাম্প আপ' দিতে বলেছি? দিলেন কেন?


এবার তিনি তার আসল রাগ দেখালেন। বললেন ভাংতি নেই, ভাংতি দেন!


এর পর আমি কিছু উত্তপ্ত বাক্য ব্যবহার করি (কিছুটা __ছাল বলে ফেলি, তবে গালি নয়)! আরো বলি, প্রতিদিন আমি পাঠাও চড়ি, আপনার মত বেয়াদব খুব কম দেখেছি!


দেখলাম সে তেমন কিছু বলছে না। আমি রাস্তার অপর পাড়ে চা দোকানে গিয়ে ভাংতি এনে গুনে গুনে ৬৮/- টাকা দেই (এমন কখনো দেই না, সব সময়ে বেশি দেই)।


আমি টাকা দিয়ে আরেকটা চা দোকানের দিকে যাচ্ছিলাম, রাস্তার এই পাড়ে। সামান্য সময় পর দেখলাম, তিনি রাস্তার অপর পার থেকে আমাকে কি যেন বলছেন, ব্যবহার ভাল করিস ইত্যাদি ইত্যাদি!


আমি শুধু হাত তুলে বললাম, 'ভাল চাইলে চলে যা, আর ফিরে তাকাইস না'!


বাসায় ফিরেই দেখি মোবাইল কল (01863416516, আগের নম্বর নয়, এটা মনে হয় তার অন্য আর একটা নাম্বার), আমি ফোন ধরতেই বুঝতে পারলাম, ইনিই তিনি! বিশ্বাস করুন, কি জঘণ্য সব গালি দিলেন! (সব রেকর্ডেড আছে) আমি বিশ্বাস করতে পারছিলাম না!


যাই হোক, কল দিয়ে গালাগালি করে আর সময় নষ্ট করতে চাইলাম না! পাঠাও একাউন্ট দিয়ে তাকে রিপোর্ট করলাম! এখন প্রায় ২৪ ঘন্টা পার হতে চলল, জানি না তার বিরুদ্ধে কি অ্যাকশন নেয়া হয়েছে!


ভাবছি, এমন বেয়াদব কী করে রাইডার চালায়!


সাহাদত উদরাজীর ব্লগ থেকে


বিবার্তা/হুমায়ুন/মৌসুমী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com