সাঙ্গায় এক ডজন সাঙ্গোপাঙ্গ
প্রকাশ : ১৪ জুলাই ২০১৭, ০৯:১৩
সাঙ্গায় এক ডজন সাঙ্গোপাঙ্গ
জিয়াউদ্দিন সাইমুম
প্রিন্ট অ-অ+

ইসলামের প্রাথমিক যুগে ‘মুতা বিবাহ’ নামে এক ধরনের সাময়িক বিয়ে মুসলিম সৈনিকদের মাঝে চালু ছিল। আবার একই ধরনের সাময়িক বিয়ে মধ্যযুগে হিন্দু সম্প্রদায়ের মাঝেও চালু ছিল। এ বিয়েই সাঙ্গা নামে পরিচিত ছিল।


পরবর্তী কালে বাংলা ভাষায় স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ে বা বিধবার বিয়ে সাঙ্গা নামে পরিচিতি পায়। চট্টগ্রাম অঞ্চলে বিশেষত মীরসরাই এলাকায় এ জাতীয় বিয়ে (জাতিধর্মনির্বিশেষ) ‘হাঙ্গা’ নামে পরিচিত। বোঝা যায়, হাঙ্গা সাঙ্গা শব্দেরই আঞ্চলিক উচ্চারণভেদ।


সংস্কৃত সঙ্গ থেকে সাঙ্গা শব্দটির উৎপত্তি (আমাদের বৈষ্ণবের সকল রকম আছে জান, আমার মনে মনে ইচ্ছা, মঠধারী ব্রহ্মচারীকে বলিয়া তোমায় সাঙ্গা করে ফেলি- আনন্দমঠ, বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়; মায়ের ইচ্ছা ছিল সাঙ্গা দেবে, কিন্তু তার আগেই মা গেল মরে- সুবাসীর খলযাত্রা, মিল্টন বিশ্বাস)।


আবার সংস্কৃত সাঙ্গ থেকে বাংলা আ প্রত্যয় যোগেও সাঙ্গা শব্দটি তৈরি হয়েছে। এ সাঙ্গা অর্থ বাঁশ, বেত ইত্যাদির তৈরি আলনা। এ সাঙ্গা শব্দের বানানভেদ হচ্ছে সাঙা।


এদিকে সংস্কৃত সহ + অঙ্গ + উপাঙ্গ= সাঙ্গোপাঙ্গ। সংস্কৃতে সাঙ্গোপাঙ্গ মানে শিক্ষা কল্প ইত্যাদির অঙ্গ ও মীমাংসা। ধর্মশাস্ত্র ইত্যাদি উপাঙ্গের সঙ্গে সমগ্র অর্থেও সংস্কৃতে সাঙ্গোপাঙ্গ শব্দটির ব্যবহার আছে। আর প্রধান ও অপ্রধান অনুচরবর্গের সঙ্গে সদলবলে অর্থে সাঙ্গোপাঙ্গের প্রয়োগ দেখা যায় (তিনি সাঙ্গোপাঙ্গ নেতা)।


কিন্তু বাংলায় সাঙ্গোপাঙ্গ মানে অনুচরবর্গ, দলবল (এ শ্মশানে মহাভৈরবী তাঁর সাঙ্গোপাঙ্গ লইয়া প্রত্যহ রাত্রে নরমুণ্ডের গেণ্ডুয়া খেলিয়া নৃত্য করিয়া বিচরণ করেন, তাঁহাদের খল্খল হাসির বিকট শব্দে কতবার কত অবিশ্বাসী ইংরাজ, জজ-ম্যাজিস্ট্রেটেরও হৃদ্স্পন্দন থামিয়া গিয়াছে, এমনি সব লোমহর্ষণ কাহিনী এমন করিয়াই বলিতে লাগিলেন যে, এত লোকের মধ্যে দিনের বেলা তাঁবুর ভিতরে বসিয়া থাকিয়াও অনেকের মাথার চুল পর্যন্ত খাড়া হইয়া উঠিল- শ্রীকান্ত, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়)।


ক্রিয়া-বিশেষণ হিসেবে সাঙ্গোপাঙ্গ অর্থ অঙ্গপ্রত্যঙ্গসহ বর্তমান (সাঙ্গোপাঙ্গ অবতীর্ণ হন অবনীতে- কৃষ্ণদাস কবিরাজ)।


বাংলা একাডেমির অভিধানে বলা হয়েছে, নিত্যানন্দ এবং অদ্বৈত অঙ্গ এবং শ্রীবাস আদি ভক্তগণ উপাঙ্গ, এই মিলে সাঙ্গোপাঙ্গ।


কিন্তু বাংলায় সাঙ্গোপাঙ্গ ব্যতিক্রমী আবহ সৃষ্টি করেছে। বলা যায়, রসিকজন হিসেবে বাঙ্গালির সুখ্যাতি আছে। নইলে কি আর তারা সাঙ্গোপাঙ্গ নামের বিশেষণটি দিয়ে দলবল, অনুচর, চেলা আর পরিষদ বোঝাতে পারতো?


সাঙ্গোপাঙ্গের মূল অর্থ অঙ্গ আর উপাঙ্গসহ। অঙ্গ হল মূল দেহ এবং উপাঙ্গ হল চোখ, কান নাকের মতো মূল অঙ্গের সহযোগী অঙ্গ। মজার ব্যাপার হচ্ছে এ সাঙ্গোপাঙ্গ শব্দটিকে এখন আমরা অঙ্গ আর উপাঙ্গহীন করে চেলাচামুণ্ডা অর্থে যুতসইভাবে আমরা চালিয়ে দেই (তার সঙ্গে দেদার সাঙ্গপাঙ্গ চেলাচামুণ্ডা- বাদশাহী আংটি, সত্যজিৎ রায়)।


বিবার্তা/জিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com